সোনাগাজীতে করোনায় মাদ্রাসা শিক্ষকের মৃত্যু, রাতেই দাফন

0
45

গ্রামীণটাইমসঃ ফেনীর সোনাগাজীতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে নিজ বাড়িতে সালাহ উদ্দিন বাবুল (৪৮) নামে এক মাদ্রাসা শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে।

তিনি উপজেলার মতিগঞ্জ ইউনিয়নের দৌলতকান্দি গ্রামের ভেন্ডার বাড়ির ও মতিগঞ্জ আর এম হাট কে উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষক মরহুম আবদুল ওহাবের কনিষ্ঠ ছেলে। তিনি ফেনী সদর উপজেলার ধলিয়া ইউনিয়নের দৌলতপুর চৌধূরী পাড়া হুমায়রা বালিকা দাখিল মাদ্রাসার ইংরেজি শিক্ষক ছিলেন। রাত আড়াইটার দিকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রবিউজ্জামান বাবু ও ইসলামী আন্দোলনের দাফন টিমের সহায়তায় নামাজে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরাস্থানে দাফন করা হয়েছে। এলাকাবাসী ও তার পারিবারিক সূত্র জানায়, তিনি সহ তার পরিবারের ৫ সদস্য করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। গত ৪ জুন সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার নমুনা প্রদান করলে করোনা পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ আসে। বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন তারা। রবিবার বিকাল থেকে তার শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। রাতে সেটি প্রবল আকার ধারণ করে। রাত সাড়ে দশটার দিকে তিনি মারা যান তিনি।
এর আগে গত ২ জুন তার পরিবারের আরও চার সদস্যের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছিল। তারাও বাড়িতে আইসোলেশনে ছিলেন।
সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. আরমান বিন আবদুল্লাহ জানান, তিনি কিছুদিন আগে করোনা উপসর্গ নিয়ে সোনাগাজী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হলে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে আশানুরূপ চিকিৎসা না পেয়ে স্বজনরা তাকে বাড়িতে নিয়ে আসে। তাদের একই পরিবারের ৫ জন করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। মতিগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান রবিউজ্জামান বাবু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, একই পরিবারের ৫ সদস্যের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হওয়ার পর পর্যাপ্ত খাদ্য সহায়তা প্রদান করে উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশক্রমে বাড়িটি লকডাউন করা হয়েছিল। পরিবারের বাকী সদস্যরা শঙ্কামুক্ত থাকলেও সালাহ উদ্দিনকে বাঁচানো গেলোনা। মৃত্যুকালে সালাহ উদ্দিন স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে সহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন রেখে গেছেন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here