কৃতকর্মের দায়ে আইনি ঝামেলায় পড়তে যাচ্ছেন ট্রাম্প

0
21

গ্রামীণ টাইমস: সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প অভিশংসন দণ্ড থেকে অব্যাহতি পেলেও কৃতকর্মের দায় তাকে তাড়া করছে। আবারও নতুন নতুন আইনি ঝামেলায় পড়তে যাচ্ছেন তিনি। চার বছরের বেপরোয়া কর্ম আর ক্ষমতার শেষ দিকে যুক্তরাষ্ট্রকে অস্থির করে তোলার খেসারত তাকে দিতেই হবে বলে মনে করা হচ্ছে। সিএনএন।

দ্বিতীয় দফা অভিশংসন আদালত থেকে অব্যাহতি পাওয়া ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে জর্জিয়া রাজ্যে তদন্ত শুরু হয়েছে। জর্জিয়া রাজ্যের নির্বাচন কর্মকর্তাকে ট্রাম্প ফোন করে ভোটের ফলাফল পাল্টে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন। সেই তদন্তেরও এখন গতি বেড়েছে। নিউইয়র্কে আগে থেকেই চলমান অপরাধ তদন্ত নড়াচড়া শুরু করেছে। রাজ্য মর্যাদায় থাকা রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসি কর্তৃপক্ষও ট্রাম্পের নামে অপরাধ সংগঠনের অভিযোগ এনে বিচারের সম্মুখীন করার উদ্যোগ নিয়েছে।
ক্ষমতা থেকে সরে যাওয়ার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে বিচার থেকে দায় মুক্তির সুযোগ এখন ডোনাল্ড ট্রাম্পের নেই। তার বিরুদ্ধে একাধিক নারীর করা মামলাও ঝুলে আছে। ট্রাম্পের ব্যবসায়িক লেনদেন ও কর ফাঁকির বিষয়েও তদন্ত চলছে। গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলের ঘটনা এবং এসব নিয়ে সিনেটে অভিশংসন আদালতে উপস্থাপিত ভিডিও চিত্র ব্যাপকভাবে প্রচারিত হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমে। একজন সাবেক প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভাবমূর্তি তাঁর অন্ধ সমর্থক ছাড়া অন্যদের কাছে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
ডোনাল্ড ট্রাম্পকে এখন বেশ কয়েকটি সিভিল মামলা ও ক্ষতিপূরণ মামলার সঙ্গে অপরাধ সংগঠনের মামলা মোকাবিলা করতে হবে। অপরাধ আইনে মামলা হলে তাকে কারাগারেও যেতে হতে পারে। জর্জিয়ার ফুলটন কাউন্টির অ্যাটর্নি জেনারেল ফেনি উইলস বলেছেন, তদন্তের মাধ্যমে অপরাধের সঙ্গে জড়িত যেকোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা করা হবে। নির্বাচনের ফল পাল্টে দেওয়ার জন্য কোনো নির্দেশ বা চেষ্টার সঙ্গে জড়িত কোনো লোকের সামাজিক বা অন্য কোনো অবস্থান বিবেচনা না করেই মামলা পরিচালিত হবে। আগামী মার্চের মধ্যেই জর্জিয়ার তদন্তের ফলাফল পাওয়া যাবে বলে মনে করে হচ্ছে।
৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলের সংগঠিত ঘটনার জন্য অভিশংসন আদালত থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে ওয়াশিংটন ডিসির স্থানীয় আইনে তিনি অভিযুক্ত হতে পারেন। এ নিয়ে ফেডারেল তদন্ত চলছে। ওয়াশিংটন ডিসির অ্যাটর্নি জেনারেল কার্ল রেসাইন সতর্ক করে বলেছেন, ফেডারেল তদন্তে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প স্থানীয় আইনে অভিযুক্ত হতে পারেন। এমন অপরাধমূলক অভিযোগ আদালতে মোকাবিলা করতে হবে ট্রাম্পকে।
ট্রাম্পের বিরুদ্ধে চলমান সিভিল মামলাগুলোর অগ্রগতিতে এত দিন ধীর গতি ছিল। প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতায় থাকার সুবিধা আর না থাকায় এসব মামলা এখন গতি পাবে। সিভিল ও ক্ষতিপূরণ মামলাগুলো এমনিতেই ধীর গতির হয়ে থাকে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে জর্জিয়া, নিউইয়র্ক ও ওয়াশিংটন ডিসিতে অপরাধ আইনে মামলা শুরু হলে, সহসাই তাকে এসব মোকাবিলার জন্য আদালতে দাঁড়াতে হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

-এমএসআইএস 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here