কারো গোপন কথা জমিয়ে রাখবেন না……….. কেনো?

আপনার যে শারীরিক ও মানসিক সুস্থতা বিঘ্নিত হতে পারে তা কি জানেন?

0
44

গ্রামীণ টাইমস: প্রিয় বন্ধু বা বান্ধবীর কোনো গোপন কথা আপনাকে সে বললো মানে সে আপনাকে বিশ্বাস করে বললো। কিন্তু তা ফাঁস করে দিলেই আপনি খারাপ। এতদিন তো এটাই জানতেন। কিন্তু এভাবে মনের মধ্যে হাজারটা গোপন কথা জমা হতে থাকলে আপনার যে শারীরিক ও মানসিক সুস্থতা বিঘ্নিত হতে পারে তা কি জানেন? নৈতিকভাবে অন্যের কথা তারা আপনাকে মানা করার পরেও সামনে বলে ফেলা বেঠিক। কিন্তু নিজের শরীরের কথা ভাবলে তা ভুল নয়। বরং এতেই সুস্থ থাকবেন আপনিও আপনার মানসিক স্বাস্থ্য।

১. কথা জমিয়ে রাখলে সে যদি কোনো ভুল কাজ করে সেটাও তাহলে আপনি তাকে সমর্থন করলেন। এতে আপনার পাপবোধ বাড়বে। পরে একা একা বসে ভাবলে আপনারই খারাপ লাগবে। তাই সত্যিটা সামনে বলতে শিখুন। বাকিরা জানবেন যে আপনি অন্যায়ের সঙ্গে আপোষ করেন না। হয়তো সেই প্রিয় বন্ধু রুষ্ট হবে কিন্তু পরে আপনার সততার জন্যে আপনার প্রশংসা না করে সেও থাকতে পারবে না।

২. হয়তো আপনি সত্যিটা বললেন না। কিন্তু অন্য কেউ সেটা আপনার বন্ধুর ব্যাপারে তার সামনেই বলে দিলো। যে সেটা আপনার কাছ থেকে শোনার আশা করেছিল সে আপনাকে মিথ্যুক ছাড়া আর কিছুই ভাববে না। ফলে আপনি আর সেই তৃতীয় ব্যক্তি দুজনেই কষ্ট পাবেন মানসিকভাবে। আপনার ও আপনার বেস্ট ফ্রেন্ডের প্রতি তার বিশ্বাস নষ্ট হয়ে যেতে বেশি সময় লাগবে না। হয়তো এতে সম্পর্কও খারাপ হতে পারে।

৩. যত আপনার মধ্যে গোপন কথা জমা হবে তত আপনার পাপের সংখ্যা আস্তে আস্তে বাড়তেই থাকবে। শুধু তাই না, আপনার বন্ধু যেভাবে ভুল করে বেঁচে যাচ্ছে, আপনিও সেটাকে মনে মনে সহজ পন্থা ভেবে সেইদিকে এগোতে পারেন। এর একটা নেগেটিভ প্রভাব তো পড়েই ঠিক।

৪. দিন-রাত এরকমভাবে আপনার বন্ধু আপনাকে নানা খারাপ সিক্রেট শেয়ার করতে থাকলে তার প্রতিও আপনার চিন্তা-ভাবনা পাল্টাবে। এমনকি সেও প্রশ্রয় পেয়ে যাবে যে আপনাকে বললে সে বেঁচে যাবে। পরে অবশ্য সে আপনাকেও ফাঁসিয়ে দিতে পারে।

-এমএসআইএস 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here