বাড়িতেই যদি থাকে আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড!

0
29

গ্রামীণ টাইমস: যদি বাড়িতেই থাকে আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড। তবে সে আর কেউ নয়, আপনারই রক্তের সম্পর্কের ভাই বা বোন। অনেকেই বলেন সে তো ছোট বয়সে, সে কী করে আপনার চিন্তা-ভাবনাকে বুঝবে? কিন্তু আসলেই সে যে কতটা ছোট সেটা আপনি বিপদে পড়লেই বুঝবেন। অনেক পরিবারের বড়ো সন্তান ছোটটির থেকে তথ্য লুকিয়ে রাখে বা তার সামনে সব কথা বলে না। বড়ো সন্তান মনে করে যে সে ছোট হওয়ায় সেই তথ্য ফাঁস করে দিতে পারে ভুল করেই। এই ভাবনাটা ছোট সন্তানের জন্মের পর থেকেই বড়োটির মনে বাসা বাঁধে আর তাই দুই সন্তানের মধ্যে তৈরি হয় মানসিক দূরত্ব। কিন্তু ভেবেছেন যে এরাও আপনার বন্ধু নয় বেস্ট ফ্রেন্ডের জায়গাটাও নিতে পারে?

১. এরাই একমাত্র অবলম্বন যখন আপনি বাড়ি ঢুকতে দেরি করছেন আর মা-বাবার থেকে লুকিয়ে রুমে ঢুকতে চাইছেন। বোন বা ভাই ঠিক কোনো না কোনো উপায়ে কিন্তু আপনাকে ঢোকাবেই বাড়িতে। আর আপনারও কিন্তু এমন সমস্যায় তার কথাই মনে পড়বে।

২. আপনারা জন্ম থেকেই একে অপরের বদ অভ্যেস সম্পর্কে জানেন। তাই কোনো জায়গায় গিয়ে সেরকম কোনো পরিস্থিতি এলে আরেকজন আপনাকে সামলে নিতে পারবে। তার জন্যে বাইরে আপনাকে পালানোর জন্যে দৌড়াতে হবে না।

৩. যদিও আপনারা দুজনেই একই মায়ের পেটের সন্তান তবুও দুজনের মধ্যে একটা ব্যাপারে ঝামেলা লেগে থাকবেই যে কে বেশি সুন্দর আর কাকে মায়ের মতো দেখতে অথবা কাকে বাবার মতো দেখতে। এমনকি আপনাদের মা নিজেও সমস্যায় পড়েন দুজনকে শান্ত করতে গিয়ে।

৪. পারিবারিক কোনো অনুষ্ঠানে আপনি বা সে বর ফিকল করলে দুজনই তখন একে অপরের রক্ষক। অনুষ্ঠানের মধ্যেও সবথেকে ভালো সময় আপনারাই সেইসময়ে একসঙ্গে থেকে কাটান।

আরো পড়ুন- ঘুম থেকে উঠে হাত বা কোমর-পিঠে টান লাগে?

৫. সবথেকে বড়ো ঝামেলা বাঁধে জামাকাপড় শেয়ার করা নিয়ে। যেটা আপনার সেটাই তার বকে দাবি করতে থাকা বোনের লিপস্টিক বা নেইলপলিশটিও আপনি আড়ালে পড়তে ভালোবাসেন। তবে এর মাঝে একজন অপরকে অন্যের জিনিসে হাত দেওয়া দেখে নিলে সেক্ষেত্রে সমস্যা হয় চরমে। কিন্তু একটা সময়ের পর আপনারা একে অপরের জামাকাপড় শেয়ার করতে ভালোবাসেন।

-এমএসআইএস 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here